0
এমেনোরিয়া বা মাসিক বন্ধ এবং হোমিওপ্যাথি (Amenorrhea and homeopathy)

এমেনোরিয়া হচ্ছে মাসিক না হওয়া বা মাসিক বন্ধ থাকা (Absent mense)। যদি ১৬ বছর বয়সেও মাসিক শুরু না হয়, তাকে প্রাথমিক মাসিক বন্ধ (Primary Amenorrhea) বলে, এবং যদি মাসিক শুরু হওয়ার পরে ৬ মাস বা তার চেয়ে বেশি সময় পর্যন্ত বন্ধ থাকে, তবে তাকে দ্বিতীয় মাসিক বন্ধ (Secondary Amenorrhea) বলে। শারীর বৃত্তীয় প্রক্রিয়ার একটি স্তর হাইপোথ্যালামিক-পিটুইটারি-অভারিয়ান-ইউটেরিয়ান অক্ষের বিকৃতির কারণে মাসিক বন্ধ থাকে।

Amenorrhea and homeopathy
Amenorrhea and homeopathy


প্রাথমিক মাসিক বন্ধের কারণ (Cause of primary amenorrhea):
* ডিম্বাশয়ের রোগ যথা- পলিসিসটিক অভারী ও অন্যান্য রোগ
* ক্রোমোজোমের বিকৃতি সাথে গোনাডাল ডিসজেনেসিস
* যোনি এবং জরায়ুর অস্বাভাবিকতা
* শারীর বৃত্তিক কারণে দেরিতে বয়ঃসন্ধির আগমন
* এন্ড্রোকাইন গ্রন্থির কারণে যথা- এডিসন'স ডিজিজ, হাইপোথাইরোদিজম, এড্রেনোজেনিটাল সিন্ড্রোম
* কেন্দ্রীয় বিকৃতি যথা- পিটুইটারী টিউমার, হাইড্রোসেফালাস
* খাদ্যে অরুচি (Anorexia nervosa) ।

দ্বিতীয় মাসিক বন্ধের কারণ(Causes of secondary amenorrhea):
* শারীরবৃত্তীক কারণ তদসঙ্গে গর্ভধারণ, পুষ্টিহীনতা, মানসিক চাপ, এবং এথলেটদের অতিরিক্ত কর্ম প্রদর্শন।
* জরায়ু সম্পর্কিত বিকৃতি (এবরশন অথবা ডেলিভারীর পর জরায়ুর অন্তঃত্বক অতিরিক্ত চেঁছে ফেলার কারণে অথবা ইনফেকশনের কারণে।)
* হাইপোথালামিক-পিটুইটারী-অভারিয়ান অক্ষ(টিউমার, অপক্ক বা সময়ের আগেই রজঃনিবৃত্তি, অভারেক্টমী, Ovarectomy)

অন্যান্য কারণসমূহঃ
* হাইপারথাইরয়ডিজম
* হাইপোথাইরয়ডিজম
* এড্রেনাল গ্রন্থির টিউমার
* ডায়াবেটিস মেলিটাস
* কন্ট্রাসেপ্টিভ পিল বা উপাদান
* সাইকোট্রফিক ড্রাগ
* এক্সোজেনাস এন্ড্রোজেন্স


হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা:
নিম্নে সহায়ক হোমিওপ্যাথি ঔষধ তুলে ধরা হলোঃ

Pulsatilla  pratensis : মাসিক  বন্ধের  চিকিৎসায়  হোমিও  ঔষধগুলোর  মধ্যে  পালসেটিলার  স্থান  এক  নম্বরে।  এটি কথায়  কথায়  কেদে  ফেলে, স্নেহপরায়ন,  খুব  সহজেই  মোটা  হয়ে  যায়। এই  ধরণের  মেয়েদের  বেলায়  ভালো  কাজ  করে।

Senecio  aureus : শরীরে  রক্ত  কম  থাকলে  অর্থাৎ  যারা  রক্তশূণ্যতায় (Anemia)  ভোগছেন,  তাদের  জন্য  সেনিসিও  অরিয়াস (Senecio  aureus)  ভালো  কাজ  করে।  এদের  হাত-পা  সব  সময়  ঠান্ডা  এবং  ঘামে  ভিজা  ভিজা  থাকে।

Thlaspi  bursa  pastoris :  বারসা  পেসটোরাই  মাসিক  বন্ধের  চিকিৎসায়  একটি  শ্রেষ্ট  ঔষধ।

Calcarea  carbonica :  মোটা (Fat),  স্থূলকায়,  থলথলে (Soft)  শরীরের  মেয়েদের  ক্ষেত্রে  ক্যালকেরিয়া  কার্ব (Calcarea  carbonica)  ভালো  কাজ  করে  বিশেষত  যদি  সাথে  কিছুটা  রক্তশূণ্যতাও (Anemia) থাকে।  এদের  মাথা  সহজেই  ঘেমে(Sweat)  যায়,  অল্পতেই  বুক  ধড়ফড়(Palpitation)  করে  এবং  মাথা ব্যথা(Headache) অথবা  কাশি(Cough)  সারা  বছর  লেগেই  থাকে।

Aconitum  napellus :  ভয়  পেয়ে  মাসিক  বন্ধ  হয়ে  গেলে  একোনাইট  খেতে  হবে।

Ferrum  metallicum :  ফেরাম  মেট-এর  লক্ষণ  হলো  দুর্বলতা(Weakness),  সাদাটে  মুখ(Pale face),  বুক  ধড়ফড়ানি(Palpitation),  মুখ-চোখ  ফোলা  ফোলা (Swelling),  চোখের  চারদিকে  কালি(Black spot)  পড়ে  গেছে,  দেখতেই  মনে  হয়  অসুস্থ(Sick)।

Sepia :  মাসিক  বন্ধের  চিকিৎসায়  সিপিয়ার  লক্ষণ  হলো  পেটের  মধ্যে  চাকা  বা  বলের  মতো  কিছু  একটা  আছে  বলে  অনুভূত  হয়।  শারীরিক  দুর্বলতা  থাকে  প্রচুর  এবং  সংসারের  প্রতি  কোন  আকর্ষণ  থাকে  না।

Bryonia  alba :  যাদের  মাসিকের  সময়ে  মাসিক  না  হয়ে  বরং  নাক  থেকে  রক্তক্ষরণ  হয়  এবং  প্রচণ্ড  মাথা  ব্যথা  হয়,  তাদের  বেলায়  ব্রায়োনিয়া(Bryonia  alba) প্রযোজ্য।

Lachesis :  ল্যাকেসিসের  লক্ষণ  হলো  পিরিয়ড  শুরু  হলে  নাক  থেকে  রক্তক্ষরণ  এবং  মাথা  ব্যথা  ভালো  হয়ে  যায়।

Graphites :  যে-সব  মহিলা  দিন  দিন  কেবল  মোটা  হতে  থাকে,  যাদের  মাসিকের  রক্তক্ষরণের (Blood secretion)  পরিমাণ  খুবই  অল্প,  যাদের  সারা  বছর  কোষ্টকাঠিন্য (Constipation)  লেগে  থাকে,  তাদের  বেলায়  গ্রেফাইটিস (Graphites)  প্রযোজ্য।

Kali  phosphoricum :  একেবারে  নার্ভাস(Weak)  ধরণের  মেয়েদের  ক্ষেত্রে  প্রযোজ্য  যাদের  শরীরের  অবস্থা  বেশ  খারাপ,  ভীষণ  বদমেজাজী (Irritate),  অতিরিক্ত  শারীরিক-মানসিক  পরিশ্রমে  যাদের  স্বাস্থ্য  ভেঙে  পড়েছে।

Cimicifuga/ Actea  racemosa :  এটি  নার্ভাস  ধরণের  মহিলাদের  ক্ষেত্রে  প্রযোজ্য  বিশেষত  যারা  ঘন  ঘন  বাতের  ব্যথায়(Rheumatic pain)  আক্রান্ত  হয়ে  থাকেন।  মনে  আনন্দ  নাই  এবং  সবকিছুরই  খারাপ  দিকটা  আগে  চিন্তা  করেন।

Natrum  muriaticum :  যাদের  ঋতুস্রাবে  রক্তক্ষরণ (Secretion)  হয়  খুবই  অল্প (Scanty)  এবং  যাদের  পিরিয়ড  প্রতিবারই  কিছুদিন  পিছিয়ে  যায়,  তাদের  মাসিক  বন্ধ (Amenorrhea)  হলে  নেট্রাম  মিউর  প্রযোজ্য।  এদের  মুখ  হয়  সাদাটে(Pale)  এবং  ফোলা  ফোলা  এবং  বেশী  বেশী  লবণ  বা  লবণযুক্ত(Salty)  খাবার  খাওয়ার  প্রতি  তীব্র  আকর্ষণ(Desire)  থাকে।

Kali  Carbonicum :  যে-রোগীর  লক্ষণ  নেট্রাম  মিউরের  মতো  অথচ  নেট্রাম  মিউরে (Natrum  muriaticum)  কোন  কাজ  হয়  না,  সেক্ষেত্রে  ক্যালি  কার্ব (Kali  Carbonicum)  দিতে  হবে।

Post a Comment

 
Top