0
বারসা প্রদাহ (Bursitis):
বারসাইটিস বলতে বারসার প্রদাহ বুঝায়। বারসা হাড়, টেন্ডন, গাঁটের কাছের পেশীগুলোর মধ্যে একটি বালিশ বা গদি হিসেবে কাজ করে। বারসা হল তরল পূর্ণ থলিকা। বারসাইটিস আক্রান্ত ব্যক্তিরা প্রদাহ স্থানে ব্যথা ব্যথা বোধ করে। "bursa" শব্দটি ল্যাটিন bursa থেকে এসেছে যার অর্থ purse বা টাকা রাখার থলি বা মানিব্যাগ।
মানব শরীরে প্রায় ১৬০টি বারসা আছে। এই ক্ষুদ্র, তরল পূর্ণ থলিকাগুলি আমাদের হাড়, টেন্ডন, এবং গাঁটের(Joints) কাছাকাছি পেশীগুলির মধ্যে বালিশ বা গদির মত চাপের বিপরীতে মসৃণ এবং পিচ্ছিলকারক বিন্দু হিসেবে কাজ করে। বারসাগুলি সাইনোবিয়াল কোষের সঙ্গে যুক্ত থাকে। সাইনোবিয়াল(Synovial) কোষগুলি একটি পিচ্ছিলকারক পদার্থ উত্পাদন যা ঘর্ষণ হ্রাস করে। এই গদি এবং পিচ্ছিলকারক পদার্থের জন্য আমাদের গাঁটগুলোকে সহজে নড়াতে পারি।

Bursitis and Homeopathy
Bursitis and Homeopathy


শরীরের যে অংশ বারসাইটিস আক্রান্ত হতে পারেঃ
যেকোন বারসাই আক্রান্ত হতে পারে, তবে নিম্নলিখিত স্থানে সবচেয়ে বেশি দেখা যায়-
কাঁধে বারসা প্রদাহ-
Subacromial Bursitis
Subdeltoid Bursitis

কনুই বারসা প্রদাহ-
Olecranon Bursitis

হাতের কব্জি বারসা প্রদাহ-
Ulnar Bursitis
Radial Bursitis

কোমরের (Hip) বারসা প্রদাহ
Trochanteric Bursitis
Ischial / Ischio-gluteal Bursitis
Iliopectineal / Iliopsoas Bursitis

হাঁটুর বারসা প্রদাহ-
Pre-patellar Bursitis
Infra-patellar Bursitis
Anserine Bursitis

গোড়ালি বারসা প্রদাহ-
Achilles Bursitis
Calcaneal(Retro) Bursitis

পায়ের বারসা প্রদাহ-
Bunion Bursitis
Metatarsal(Inter) Bursitis

বারসা প্রদাহের উপসর্গগুলি হলঃ
*ব্যথা- বেদনা নড়াচড়া বা চাপ দিলে বৃদ্ধি পায়।
*স্পর্শকাতরতা- নড়াচড়া না করলেও ব্যথা অনুভূত হয়।
*ফোলে যাবে
*নড়াচড়া ক্ষমতা কমে
*সংক্রমণ দ্বারা সৃষ্ট হলে একে পচনশীল(Septic) বারসাইটিস বলে। পচনশীল বারসাইটিসে নিম্নলিখিত অতিরিক্ত লক্ষণ থাকতে পারে-
*জ্বর
*আক্রান্ত স্থান লাল
*আক্রান্ত স্থান স্পর্শ করলে গরম হয়

প্রদাহের কারণঃ
বারসা প্রদাহ আঘাত, সংক্রমণ এবং বারসা মধ্যে যদি কোনো স্ফটিক বিদ্যমান থাকে তাহলে হতে পারে।
আঘাত- আঘাত বারসার ভিতরের কোষগুলিতে অস্বস্তি তৈরি করে এবং প্রদাহ সৃষ্টি করে। আঘাত দ্বারা সৃষ্ট বারসাইটিস সাধারণত অনেক সময় নেয়। গাঁট, টেন্ডন, অথবা বারসার কাছাকাছি যে পেশী অতিরিক্ত ব্যবহার হয় এবং সাধারণভাবে আঘাতের পুনরাবৃত্তিতে এটা বেশি হয়।
টেনিস কনুই- কনুই এর বারসাইটিসকে প্রায়ই টেনিস কনুই বলা হয়। এটা টেনিস এবং গল্‌ফ খেলোয়াড়দের মধ্যে একটি সাধারণ সমস্যা। কনুয়ের পুনরাবৃত্তি আঘাতে এ প্রদাহ হতে পারে।
ক্লেরজিম্যান হাঁটু - বারবার হাঁটু গেড়ে বসায় আঘাতের কারণে এটি আক্রান্ত হয়ে ফোলা যেতে পারে।
কাঁধ - ঊর্ধ্বমুখী পুনরাবৃত্তিতে এবং অতিরিক্ত ওজন নিয়ে উপরের দিকে উঠলে এটা হয়।
গোড়ালি - খুব বেশি হাঁটা এবং ভুল জুতার জন্য আঘাতের কারণে হতে পারে। বরফে যারা স্কেটিং করে এবং ক্রীড়াবিদের মধ্যে এটা বেশি ঘটে।
নিতম্ব - সাইকেল উপর দীর্ঘ সময় বা একটি কঠিন পৃষ্ঠের উপর দীর্ঘ সময় বসে থাকলে এটা হতে পারে।
কোমর - অনেক দূরত্ব বা মাঝামাঝি দূরত্বে অতিক্রমকারির এবং অনেক প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রেও এটা হতে পারে।
সংক্রমণ - জীবাণু সংক্রমণ যেমন কনুই কাছাকাছি যারা চামড়া পৃষ্ঠতলে যে বারসা থাকে সেটির সংক্রমণ হয়। সুস্থ মানুষের কাটা ত্বকের মাধ্যমে Opportunistic Bacteria দ্বারা সংক্রমণ হতে পারে। যাইহোক, দুর্বল ইমিউন যেমন ডায়াবেটিস, এইচআইভি / এইডস, ক্যান্সার (কেমোথেরাপি বা রঁজনরশ্মি দ্বারা চিকিত্সা গ্রহণ) , সেইসাথে স্টেরয়েড এবং এলকোহল ভোক্তাদের জীবাণু আক্রমণ করতে পারে।

পরীক্ষাঃ
*Blood for CBC, Circulating Eosinophil
*X-ray for fracture region
*CT scan and MRI need if tendons may torn

চিকিৎসাঃ
স্ব-চিকিৎসাঃ
আক্রান্ত স্থান রক্ষা করুন - ঘা থেকে আপনার বারসা জীবাণুদ্বারা আক্রান্ত হতে পারে, তাই আক্রান্ত স্থান প্যাড দ্বারা আবৃত রাখুন।
বিশ্রাম - আক্রান্ত গাঁট ব্যবহার করা বা এসময় ব্যায়াম থেকে দূরে থাকুন। প্রদাহ আরোগ্যে বিশ্রাম একটি পূর্বশর্ত।
আইস প্যাক - আইস প্যাক ব্যথা ও প্রদাহ কমাতে সাহায্য করতে পারে। আপনি চামড়ায় সরাসরি বরফ স্থাপন না করে, একটি প্যাক বা তোয়ালে ব্যবহার করুন। হিমায়িত সবজির ছোট থলি এতে আদর্শ।
আক্রান্ত অংশ ঝুঁকি থেকে রক্ষা করুন -হাঁটু আক্রান্ত হলে, হাঁটু প্যাড ব্যবহার করা। টেনিস এবং গলফ খেলোয়াড়দের কনুই বন্ধনী রক্ষা করতে পারে। আপনি একজন ক্রীড়াবিদ বা আপনাকে অনেক হাটতে হলে চলমান জুতা ব্যবহার করতে পারেন।
পুনরাবৃত্তিমূলক কর্ম বিরতি - কাজের মাঝে একটু বিশ্রাম নিয়ে আবার কাজ করুন, কখনও একটানা কাজ করবেন না। 
ব্যায়াম করার আগে করণীয় - সকল প্রকার ব্যায়ামের আগে আপনাকে কমপক্ষে ৫ থেকে ১০ মিনিটের জন্য শরীরকে গরম করা উচিত। বেশি গতির জগিং, ধীর গতির জগিং, অথবা সাইক্লিং মেশিন এ হাঁটা এর অন্তর্ভুক্ত হতে পারে।

হোমিওপ্যাথি চিকিত্সাঃ
হোমিওপ্যাথি ওষুধ সবচেয়ে জনপ্রিয় রোগ নিরাময়ের একটি পদ্ধতি। এ পদ্ধতিতে ব্যক্তি স্বাতন্ত্র ও সদৃশ উপসর্গের উপর ভিত্তি করে চিকিৎসা করা হয়। এটি উপসর্গ ও জটিলতা মুছে ফেলে সম্পূর্ণ স্বাস্থ্য অবস্থায় রোগীর ফিরে যাবার একমাত্র উপায়। সদৃশবিধানের লক্ষ্য শুধু বারসা প্রদাহ চিকিত্সা নয়, তার অন্তর্নিহিত কারণ ( Internal cause ) ও স্বতন্ত্র প্রবণতা মোকাবেলায়ও সহায়তা করে। স্বতন্ত্র ঔষধ নির্বাচন এবং চিকিত্সার জন্য, রোগীকে যোগ্যতাসম্পন্ন ও রেজিস্টার্ড হোমিওপ্যাথিক ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করা উচিত। বারসা প্রদাহ চিকিত্সার সহায়ক ঔষধগুলো নিম্নরুপঃ

আর্নিকা মন্টানা - বারসাইটিস আঘাতমূলক বা আঘাত থেকে উত্পত্তি হয়। এ ক্ষেত্রে ফোলা কালশিটে, বেদনাদায়ক এবং স্পর্শকাতরতা উপস্থিত থাকে।

বেলাডোনা - প্রদাহযুক্ত স্থানে দপদপ করা ব্যথা, গরম, লাল এবং ফোলা থাকে।

বেলিস পেরেনিস - দুর্ঘটনা / আঘাতে গায়ে কালশিরা পড়লে এবং টেন্ডন প্রদাহ হলে বেলিস পেরেনিস ব্যবহৃত হয়।

ব্রায়োনিয়া- তীক্ষ্ণ, সেলাই করা মত এবং ছিড়ে ফেলা মত ব্যথা থাকে। সামান্য নড়াচড়াতেই বৃদ্ধি। একুইট হয় এবং আক্রান্ত স্থান লাল, গরম এবং ফোলে যেতে পারে।

কস্টিকাম- আক্রান্ত স্থান শক্ত (Stiffness) হয়ে যায় এবং অস্বস্তি থাকে যা ঠান্ডায় বৃদ্ধি।

চেলিডনিয়াম- একটি ঊর্দ্ধবাহুতে - কাঁধ এবং বাহু আক্রান্ত হয়। শরীরের ডান দিকে বেশি হয়। আবহাওয়া পরিবর্তনের সঙ্গে শারীরিক অবস্থা খারাপ হতে থাকে।

বেঞ্জুইক এসিড- গাঁট ব্যথার জন্য খুবই কার্যকর। বিশেষ করে হাঁটু এবং কবজির ব্যথা যা নড়াচড়ায় বৃদ্ধি হয়।

ফেরাম ফস- ফেরাম ফস সাধারণত প্রদাহে ব্যবহার করা হয়। এতে বিষেশ করে ডান কাঁধের ব্যথা যা হাতের কব্জি পর্যন্ত নেমে যায়। রোগীর মুখ লালাভ থাকে।

ক্যালমিয়া লাটিফোলিয়া- বড় গাঁট যথা- নিতম্ব বা কাঁধ থেকে ব্যথা কনুই, কব্জি, হাত এবং পায়ের আঙ্গুলের দিকে ভ্রমনের করে। হঠাৎ ব্যথা আসতে পারে যা নড়াচড়া করলে এবং রাতে বৃদ্ধি পায় ও দীর্ঘস্থায়ী হয়।

ফাইটোলাক্কা- এতে হাড়ের টেন্ডন বা লিগামেন্ট প্রদাহে কার্যকর। যাতে অস্বস্তি থাকে এবং উষ্ণতা / তাপে বৃদ্ধি পায়।

রাসটক্স- হোমিওপ্যাথিতে আমাদের দেশের জলবায়ুর সাথে মিল রেখে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়। গরম, ফোলা জয়েন্টগুলো যা অতিরিক্ত ব্যবহারের জন্য হয়ে থাকে। অস্বস্তি, সামান্য নড়াচড়ায় বাড়ে এবং বেশি নড়াচড়ায় কম অনভূত হয়। ঠান্ডা থেকে এবং ডান পার্শ্বের চেয়ে শরীরের বাম পার্শ্বের জয়েন্টগুলো বেশি আক্রান্ত হয়।

রুটা- সাধারণত প্রায়ই আঘাতের পর, ফোলা, শক্ত হয়ে গেলে, এবং ব্যথা তীব্র ব্যথা ব্যবস্থাপনায় (বিশেষ করে হাঁটু এর bursitis জন্য) এটি খুবই কার্যকরি।

স্যাঙ্গুইনেরিয়া- কাঁধের প্রদাহে বিশেষ কার্যকরী, বিশেষ করে ডান কাঁধে।

সালফার- বেদনাদায়ক যা অতিরিক্ত দাঁড়িয়ে থাকার জন্য হয় এবং প্রধানত শরীরের বামদিকে ব্যথা ও প্রদাহ হয়।

স্টিক্টা পাল- দ্রুত স্থান পরিবর্তনকারী ব্যথায় এটি খুবই কার্যকরী।

Post a Comment

 
Top