0
কোমরের ব্যথায় আমরা বহু লোককে কষ্ট করতে দেখি । বাংলাদেশে শতকরা ৮০ জন মানুষ কোন না কোনভাবে কোমরের ব্যথায় ভোগেন । এ ব্যথা সাধারণত কোমরের ঠিক মাঝখানে বেশি অনুভূত হয় । কোন কোন সময় এ ব্যথা কোমরের ডানে বা বামে সরে যায় । আবার কারো কারো এ ব্যথা পায়ের গোড়ালি পর্যন্ত পৌছে । সকাল বেলা বিছানা থেকে প্রথম উঠবার সময় সমস্ত কোমরে আড়ষ্ট ভাব থাকে এবং একটু নড়াচড়া করার পর ধীরে ধীরে ব্যথা কমে যায় । নারী -পুরুষ ঊভয়কেই এ সমস্যায় ভুগতে দেখা যায় । এটি অত্যন্ত কষ্টকর একটি রোগ ।

Backache (LBP), Cause, Prevention and Homeopathic treatment
Backache (LBP), Cause, Prevention and Homeopathic treatment


এর কারণ ও প্রতিকার সম্বন্ধে নিচে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করা হলঃ

ব্যথার কারণঃ
কোমরের ব্যথার নানাবিধ কারণ রয়েছে এর মধ্যে অন্যতম হলোঃ
*হাড়ের রোগ
*মেরুদন্ডের কশেরুকার মাঝখানের ডিস্কের ডিজেনারেশন বা ক্ষয়প্রাপ্তি
*ত্রুটিপুর্ণ দৈহিক গঠন
*যে কোনভাবে আঘাত বা ঝাঁকুনি প্রাপ্তি
*অপ্রত্যাশিত ওজন বৃদ্ধি
*অধিক সময় ধরে একনাগাড়ে বসে থাকা বা দাড়িয়ে থাকা
*বেশি বেশি যান বাহনে ভ্রমন করা
*নরমাল বিছানায় শোয়া
*মোভিং(রিভল্ভিং) চেয়ারে বসা
*উঁচু হিলের জুতা পরা
*ঠান্ডা ও স্যাতস্যাতে জায়গায় বাস করা
*অধিক সময় শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কক্ষে অবস্থান করা
*অপরিমিত রতিক্রিয়া
*বিশৃঙ্খল জীবন যাপন করা
*কোন ভারি জিনিস হাতে ঝুলিয়ে বহন বা উত্তোলন করা ।

প্রতিকারঃ
*পরিকল্পিত ও পরিমিত মৃদু ব্যায়াম করা
*ওজন নিয়ন্ত্রণে এবং প্রয়োজনে ওজন হ্রাস করা
*ব্যথার স্থানে কুশুম গরম পানি ঢালা
*মেরুদন্ড সোজা করে বসার অভ্যাস করা
*কোনকিছু মাটি থেকে তুলতে কোমর বাঁকা না করে হাঁটু ভাঁজ করে তোলা
*অবসর সময়ে বিছানায় আরাম করে শুয়ে হট ওয়াটার ব্যাগ দিয়ে ব্যথার স্থানে স্যাক নেয়া
*একনাগাড়ে অনেক্ষন হাঁটাহাটিঁ না করা
*কর্মস্থলে একনাগাড়ে বসে না থেকে কিছুক্ষন পরপর একটু হালকা হাটাহাটি বা নড়াচড়া করা
*শক্ত বিছানায় ঘুমানোর অভ্যাস করা
*অলিভ অয়েল কুশুম গরম করে ব্যথার স্থানে মৃদুভাবে মালিশ করা
*সুশৃঙ্খল জীবন যাপন করা
*কোমরে বেল্ট বেঁধে চলা ফেরা করা, যাতে কোনভাবেই কোমরে ঝাঁকুনি না লাগে
*ভরা বালতি বা ভারী বাজারের ব্যাগ হাতে ঝুলিয়ে বহন না করা ।

ব্যাথার রোগীর খাবারঃ
ব্যথা হ্রাস বৃদ্ধিতে খাবারের ভূমিকা অনেক । তাই ব্যথার রোগীদের নিম্ন বর্ণিত খাবারের প্রতি যত্নবান হওয়া উচিতঃ
*আমাদের নিত্যকার খাবারের মধ্যে সবুজ শাক-সব্জি ও ফলমূল অন্যতম । এসব খাবারের মধ্যে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন  এ, সি, ডি ও সাইট্রাস সমৃদ্ধ উপাদান । এগুলো অস্থিকে মজবুত ও অস্থির ক্ষয় রোধে সহায়তা করে । তাই খাবারের ব্যাপারে আমাদের বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে এবং বেশি সবুজ শাক-সব্জি ও ফলমূল খেতে হবে । তাছাড়া প্রতিদিনের খাবার হবে সহজ পাচ্য ও কম মসলাযুক্ত ।

চিকিৎসাঃ
কোমরের ব্যথায় সুনির্বাচিত হোমিও ঔষধ বেশ ফলপ্রসু -- যা বহুল পরিক্ষিত । লক্ষণসমষ্টি নির্ণয় করে রোগের হ্রাস-বৃদ্ধি ও ধাতুগত দিক বিবেচনায় রেখে নিম্নলিখিত ওষুধগুলো ব্যবহার করা যেতে পারেঃ
রাসটক্স, ব্রায়োনিয়া, মেডোরিনাম, সিফিলিনাম, কস্টিকাম, ল্যাকেসিস, লাইকোপডিয়াম, ডালকামারা, রুটা, আর্নিকা, কেলিকার্ব প্রভৃতি ।

Post a Comment

 
Top